গাজীপুরের কালীগঞ্জে বেপরোয়া একটি মোটরসাইকেল থামাতে গিয়ে পুলিশ কনস্টেবল নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার মোক্তারপুর ইউনিয়নের একতা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত পুলিশ কনস্টেবলের নাম আব্দুল মোতালেব (৫৫)। তিনি টাঙ্গাইল জেলার বাসাইল উপজেলার একঢালা গ্রামের বাসিন্দা। কালীগঞ্জ থানায় কর্মরত ছিলেন। তার ব্যাচ সিরিয়াল নং ৯২০।

এ ঘটনায় আটককৃতরা হলেন- নরসিংদীর সদর উপজেলার বাহ্মনদী এলাকার মনিরুল ইসলামের ছেলে হাসিবুল ইসলাম (১৮) ও একই উপজেলার সংগীতা এলাকার মাহবুবুর রহমানের ছেলে তৌফিক এলাহী সিয়াম (১৮)। এদের মধ্যে সিয়াম আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

কালীগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রুপন চন্দ্র সরকার জানান, মঙ্গলবার বিকেলে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে তিনি উপজেলার মোক্তারপুর ইউনিয়নের একতা এলাকার কালীগঞ্জ-চরসিন্দুর ব্রিজে ডিউটি করছিলেন। এ সময় কনস্টেবল শহিদ নরসিংদীর পলাশ উপজেলার চরসিন্দুরের দিক থেকে আসা ২ আরোহীসহ দ্রুত গতির মোটরসাইকেলকে থামতে বলেন।

কিন্তু চালক সিয়াম তা অমান্য করে ১০ গজ সামনে থাকা কনস্টেবল মোতালেবের উপর দিয়ে মোটরসাইকেল চলিয়ে দেন। এ সময় তাকে কমপক্ষে ২০ গজ টেনে নিয়ে যায়। পরে মোটরসাইকেলটি সামনের একটি ইজিবাইককে ধাক্কা দিলে চালকসহ ২ আরোহী নিচে পড়ে যায়। এ সময় তাদের দুজনকে আটক করে পুলিশ।

এদিকে গুরুতর আহত অবস্থায় কনস্টেবল মোতালেবকে পলাশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে সেখান থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবুবকর মিয়া বলেন, মরদেহ ময়নাতদন্তের পর নিহতের নিজ গ্রামে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে।