ফারিয়া শোনালেন তার বিয়ের পেছনের গল্প। স্বামী হিসেবে অপুকে বেছে নিয়েছেন।

রাজধানী গুলশানে শনিবার রাতে একটি পার্টি সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল অভিনেত্রী শবনম ফারিয়ার গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান। আনন্দের এই দিনে উচ্ছ্বসিত ফারিয়া শোনালেন তার বিয়ের পেছনের গল্প। স্বামী হিসেবে কেন অপুকে বেছে নিলেন জানালেন সে কথাও।
শনিবার নিজের ফেসবুকে একটা স্ট্যাটাসে ফারিয়া লিখেন,

’আমার বন্ধু অপু আর আমি আমাদের বন্ধুত্বের একটা সময় অদ্ভুত একটা টান ফিল করি, এবং প্রেমের সিদ্ধান্তে উপনিত হই! অপজিট অ্যার্টাক্ট বলে যে বিষয়টা থাকে তার পরিনামই হয়তো! কিন্তু তার বছর খানেক পর বিভিন্ন ঘটনার ফল স্বরুপ আমাদের মনে হলো আমরা বন্ধু হিসাবেই ভাল ছিলাম, সিদ্ধান্ত নেই আমরা সরে যাব! বাবা চলে যাওয়ার ১৫ দিন আগে জানি না কেন বাবা অপুকে বাসায় ডাকেন এবং আমাদের ব্রেকআপ এর বিষয়ে জানতে যায়!’

শবনম ফারিয়া আরও বলেন,’ বাবার চলে যাওয়ার পর আমার মনে হলো বাবার অবর্তমানে যে মানুষটাকে আঁকরে সারা জীবন থাকা যাবে সে অপু ছাড়া কেউ না। সবচেয়ে বড় কথা বাবা চাইতো আমি অপুরেই বিয়ে করি। এবার পারিবারিক ভাবে ঘটনা আগায়। যার ফলাফল বিবাহ্! এই কথা গুলো লেখাটা যত সহজ ছিল, সে সময় ডিল করাটা ততই চেলেন্জিং ছিল! আজকে আমাদের সেই চেলেন্জিং টাইমটা কে আমাদের বন্ধু-বান্ধব দের নিয়ে সেলিব্রেট করলাম।’
তার হবু বরের পুরো নাম হারুনুর রশীদ অপু। একটি বেসরকারি বিপণন সংস্থার জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক তিনি। ১ ফেব্রুয়ারি ফারিয়া-অপুর বিয়ের অনুষ্ঠান হবে। তার আগে ২৬ জানুয়ারি হয়ে গেল মেহেদি উৎসব ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে ফেসবুকের মাধ্যমে ফারিয়া- অপুর বন্ধুত্ব হয়। অপু ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠায় ফারিয়াকে, সে গ্রহণ করে। এরপর ফেসবুকে কথা বলতে বলতে ভালো বন্ধুত্ব তৈরি হয় তাদের মধ্যে। তিন বছর ধরে তাদের বন্ধুত্ব। অবশেষে দুই পরিবারের সিদ্ধান্তেই তাদের বিয়ে।