উদ্ধারকৃত মোটরসাইকেল

ইমরান মাহমুদঃ  ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা উত্তর বিভাগের একটি টিম ডেমরা থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে।গতকাল রাতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে,চোরাই মোটরসাইকেল, অস্ত্র ও গুলিসহ ডাকাত দলের ০৫ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- মোঃ সালিম উদ্দিন আহম্মেদ  (৩৫),  মোঃ রনি (৩৫),  মোঃ টিপু (২৪), বাপ্পি সরকার (২৩) ও মোঃ সালাউদ্দিন ফকির (২৩)।

গ্রেফতারের সময়  সালিম উদ্দিন আহম্মেদ  এর দেহ তল্লাশী করে ০২টি রিভলবার ও ২২ রাউন্ডগুলি এবং অন্যান্যদের নিকট হতে ০৮টি চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।

ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিং-এ বিস্তারিত জানান ডিবি’র অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার দেবদাস ভট্টাচার্য্য।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, গ্রেফতারকৃত রনি ও টিপু মোটরসাইকেল চোর চক্রের সদস্য। তাদের নেতা মোঃ দ্বীন ইসলাম (পলাতক) ও মোঃ সালিম উদ্দিন আহম্মেদ  সবুজ। তারা বিভিন্ন বাসা বাড়ী, পার্কিং এলাকায় রেখে যাওয়া মোটরসাইকেল এর লক্ ভেঙ্গে অথবা রাস্তায় মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে মোটরসাইকেল চুরি ও ছিনতাই করে। পরবর্তী সময় চোরাই গাড়ীর ইঞ্জিন নম্বর ও চেসিস নম্বর পরিবর্তনের মাধ্যমে ভূয়া কাগজ তৈরী করে এবং দালালের মাধ্যমে কম মূল্যে বিক্রয় করে। তাদের সহযোগী পলাতক মোঃ দ্বীন ইসলামের নেতৃত্বে ডাকাতি ছিনতাইসহ চোরাই ও ছিনতাইকৃত মোটরসাইকেল কেনা বেচা করে থাকে। দ্বীন ইসলামকে গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

যাদের মোটর সাইকেল চুরি, ছিনতাই বা ডাকাতি হয়েছে, তাদের মোটর সাইকেল উদ্ধারকৃত মোটর সাইকেলের মধ্যে থেকে থাকলে যোগাযোগ করতে বলেছেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার দেবদাস ভট্টাচার্য্য ।

অপর একটি অভিযানের বিষয়ে ডিবি প্রধান বলেন, ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা সিরিয়াস ক্রাইম বিভাগ ৪টি দেশীয় অস্ত্র ও ১টি পিকআপ ভ্যানসহ ৪ জন ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে। গতকাল সন্ধা ৬টায় সময় ডেমরা  রাণীমহল সিনেমাহলের সামনে হতে মোঃ আমজাদ আলমগীর,  মোঃ মূসা মাতব্বর,  মোঃ আলমগীর ও  ওমর ফারুক কে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারের সময় তাদের হেফাজত ১টি চাপাতি, ২টি ছোরা, ১টি চাকু ও ১টি পিকআপ ভ্যান উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, দেশের বিভিন্ন এলাকা হতে ঢাকায় আগত মাছের পিকআপ বা ট্রাককে টার্গেট করে তারা উদ্ধারকৃত পিকআপ দিয়ে রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। তারপর অস্ত্রশস্ত্রের ভয় দেখিয়ে মাছের পিকআপ থেকে মাছগুলো ডাকাতি করে নিজেদের পিকআপে করে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে সে মাছগুলো তারা বিক্রি করে থাকে।

এছাড়া ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা সিরিয়াস ক্রাইম বিভাগ অন্য একটি অভিযানে পশ্চিম শেওড়া পাড়া থেকে ২টি পিস্তল ও ১০ রাউন্ড গুলিসহ নূরুল আমীন নামে  ১ জন ভূয়া ডিবি পুলিশকে গ্রেফতার করে।

সূত্রঃ ডিএমপি মিডিয়া।

Please follow and like us:
error