সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করা হয়েছে। এরপরেই শিশুটিকে দাফনের জন্য নেয়া কবরস্থানে। সেখানে শেষ গোসলের সময় হঠাৎ জানান দিল সে জীবিত।

সোমবার (২৩ এপ্রিল) দুপুর ১২টার দিকে রাজধানীর আজিমপুর গোরস্থানে এ ঘটনা ঘটে। এরপর পুনরায় ঢামেকে নিয়ে গেলে সেখান থেকে ঢাকা শিশু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

ভাগ্যবান শিশুটি আজিমপুরের বাসিন্দা শরিফুল ইসলামের নবজাতক মেয়ে মীম।

শিশুটির মামা শরিফুল ইসলাম জানান, আজ সকাল ৮টায় তাঁর বোনের বাচ্চা প্রসব হয়। পরে ঢামেক থেকে তাকে মৃত ঘোষণার করা হয়। পরে তারা লাশ নিয়ে আজিমপুর কবরস্থানে দাফনের জন্য নেয়া হয়। গোসলখানায় নবজাতকের গায়ে পানি ঢাললে নবজাতকটি নড়েচড়ে ওঠে। দ্বিতীয়বার পানি ঢালতেই দেখা যায় শ্বাস-প্রশ্বাস ওঠানামা করছে। সে সময় শিশুটির হার্ট সচল বুঝে আজিমপুরের হাসপাতাল পরে সেখান থেকে শ্যামলী শিশু হাসপাতালে আনা হয়। পরে ডাক্তাররা জানিয়েছে সে জীবিত।

ঢাকা শিশু হাসপাতালের সিনিয়র জনসংযোগ কর্মকর্তা আব্দুল হাকিম জানান, শিশুটিকে হাসপাতালে আনার পর ডাক্তাররা তাকে দেখেছে এবং বেডে নেয়া হয়েছে। আশা করা যায় সে সুস্থ হয়ে উঠবে।

শিশুটির মা এখনও ঢামেকে ভর্তি বলে জানান তিনি।

আজিমপুর কবরস্থানের মোহরার হাফিজুল ইসলাম জানান, ঢামেক হাসপাতালের ডেথ সার্টিফিকেটে নবজাতক মৃত অবস্থায় জন্মগ্রহণ করেছে বলে উল্লেখ করা হয়। এতে নবজাতকের পিতার নাম- মিনহাজ। ঠিকানা- ধামরাই, ঢাকা লেখা হয়েছে।

সূত্র: ভোরের পাতা