> অনলাইন ডেস্ক: বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকার এ বছরের প্রথম ছয় মাসে ৮৩ হাজার ৩৪৫টি অ্যাকাউন্ট সম্পর্কে তথ্য চেয়েছে গুগলের কাছে। এসব অনুরোধের ৬৫ শতাংশ সাড়া দিয়েছে তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্বসংস্থাটি।

এর মধ্যে বাংলাদেশ সরকার রাষ্ট্রীয় স্বার্থে নয়টি অ্যাকাউন্টের তথ্য চেয়ে আটটি অনুরোধ জানিয়েছিল। এসব অনুরোধের ২৫ শতাংশে সাড়া দিয়ে তথ্য সরবরাহ করেছে গুগল।

গুগলের ট্রান্সপারেন্সি প্রতিবেদনে গত বৃহস্পতিবার এসব তথ্য জানানো হয়।

নিজেদের আইন অনুযায়ী বিভিন্ন দেশের সরকার, সরকারি সংস্থা, আদালত গুগলের কাছ থেকে তথ্য চেয়ে থাকে। গুগল এসব অনুরোধ পর্যালোচনা করে তাদের নীতিমালা অনুযায়ী তথ্য সরবরাহ করে। এই তথ্য সবাইকে জানাতে গুগল ট্রান্সপারেন্সি প্রতি ছয় মাস অন্তর প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

এই প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে গুগলের কাছে তথ্য চাওয়ার প্রবণতা বাড়ছে। এ বছর বাংলাদেশ সরকার গুগলের কাছে আটবার অনুরোধ করে। এতে নয়টি অ্যাকাউন্টের তথ্য চাওয়া হয়। এসব অনুরোধে ২৫ শতাংশ সাড়া দিয়ে তথ্য সরবরাহ করেছে গুগল।

গুগল জানায়, ২০১৫ সালে বাংলাদেশ সরকার প্রথম গুগলের কাছে তথ্য চেয়ে অনুরোধ জানায়। সেবার সাতটি অনুরোধপত্র পাঠিয়ে ১৩টি অ্যাকাউন্টের তথ্য চাওয়া হয়েছিল। ২০১৬ সালে পাঁচটি অনুরোধে ছয়টি অ্যাকাউন্টের তথ্য চাওয়া হয়েছিল। আর এবার আটটি অনুরোধে নয়টি অ্যাকাউন্টের তথ্য চাওয়া হয়।

গুগলের ভাষ্য, বাংলাদেশসহ অন্যান্য দেশের পক্ষ থেকে তথ্য চেয়ে অনুরোধ বেড়েছে। তবে সরকারের পক্ষ থেকে কোন কোন অ্যাকাউন্টের জন্য কী কী তথ্য চেয়ে অনুরোধ জানানো হয়েছে তা প্রকাশ করে না গুগল।

গুগলের ট্রান্সপারেন্সি তথ্যমতে, ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত বিভিন্ন দেশের সরকারের পক্ষ থেকে সব মিলিয়ে ৮৩ হাজার ৩৪৫টি অ্যাকাউন্ট সম্পর্কিত তথ্য চেয়ে ৪৮ হাজার ৯৪১টি অনুরোধ এসেছে। এসব অনুরোধের ৬৫ শতাংশ সাড়া দিয়েছে গুগল।

Please follow and like us:
error